একাকী গুহায় পাঁচশো দিন

মানুষের সঙ্গে কোনো ধরনের যোগাযোগ ছাড়াই ৫০০ দিন গুহায় কাটালেন এক নারী। গুহায় ৫০০ দিন কাটিয়ে সম্প্রতি বাইরের আলো-বাতাসের সংস্পর্শে এসেছেন বিট্রিজ ফ্লামিনি নামে এক  স্প্যানিশ অ্যাথলেট। ফ্লামিনির বয়স এখন ৫০। যখন তিনি গুহায় প্রবেশ করেছিলেন তখন তার বয়স ছিল ৪৮। গুহায় কিভাবে দিন কাটিয়েছেন সেটাও জানান তিনি। তার সময় কেটেছে ব্যায়াম করে, উল দিয়ে টুপি বুনে। এ ছাড়া সঙ্গে নিয়েছিলেন ৬০টি বই এবং এক হাজার লিটার জল। 

গুহার অন্ধকার থেকে বেরিয়ে দক্ষিণ স্পেনের এই পর্বতারোহী সাংবাদিকদের বলেন, সময়টা যেন উড়ে গেছে। আর তার বাইরে আসার ইচ্ছাও ছিল না। তিনি আরও বলেন, তারা যখন আমাকে নিতে এল, আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। ভেবেছিলাম কিছু একটা হয়েছে। আমি বললাম, আমি এখনও আমার বই শেষ করতে পারিনি।

যে গুহায় ফ্লামিনি  ৫০০ দিন কাটানোর চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন, তার বাইরে একটি সহায়তা টিম ছিল। তারা জানান, গুহার ভেতরে মানুষের মন এবং ২৪ ঘণ্টার চক্রে সেখানে তার শারীরিক, মানসিক ও আচরণগত কী কী পরিবর্তন ঘটে সেটা জানতেই বিজ্ঞানীদের পরীক্ষামূলক চ্যালেঞ্জে অংশ নেন তিনি। আর  ফ্লামিনি দীর্ঘ সময় গুহায় কাটানোর জন্য একটি বিশ্ব রেকর্ড ভেঙেছেন। তিনি যখন গুহায় প্রবেশ করেন, তখন তার বয়স ছিল ৪৮ বছর, দুটি জন্মদিন একা একাই গুহার ভেতরে পালন করেছেন তিনি। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two + four =