করোনা মুক্ত গ্যাজেট

স্মার্টফোনের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। ফোনের স্ক্রিন থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।  এ পর্যন্ত ২২টি গবেষণায় দেখা গেছে করোনাভাইরাস ধাতব, গ্লাস এবং প্লাস্টিক জাতীয় বস্তুতে নয়দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। এ থেকে একজন সুস্থ ব্যক্তির করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এজন্য দিনে দুইবার অ্যালকোহল মিশ্রিত টিস্যু দিয়ে ব্যবহারের প্রয়োজনীয় জিনিস এবং ফোনের স্ক্রিন পরিষ্কার করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপল ও গুগল জানিয়েছে, ফোনের স্ক্রিন জীবাণুমুক্ত করতে মাইক্রোফাইবার ক্লথ বা সোপি ওয়াটার ব্যবহার করা উচিত। তাই স্মার্টফোন বা ল্যাপটপকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে ঠেকাতে ১০টি কাজ করা যেতে পারে। চলুন সেগুলো জেনে নেয়া যাক।

১. প্যান্টের যে পকেটে টিস্যু বা রুমাল রাখা হয়, সেখানে ফোন রাখা থেকে বিরত থাকতে হবে।

২. ফোনে কথা বলার সময় ইয়ারফোন ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে ফোন আপনার মুখের সংস্পর্শে আসবে না।

৩. পাবলিক প্লেস কিংবা অফিসের কম্পিউটার ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। তবে ব্যবহার করলে জীবাণুমুক্ত গ্লাভস পরে নিতে হবে।

৪. যদি আপনার ফোনটি আইপি৬৮অনুমোদিত পানি নিরোধক হয় তাহলে প্রতিদিন সাবান-জল দিয়ে দুবার পরিষ্কার করা যেতে পারে।

৫. পরিষ্কারের আগে অবশ্যই আপনার গ্যাজেটটি বন্ধ করে নিন এবং বৈদ্যুতিক সংযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন করে নেবেন।

৬. ইয়ারফোন ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করে নিন।

৭. ডিভাইস পরিষ্কারের জন্য সব ধরনের তরল জাতীয় পদার্থ ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

৮. ফোন অথবা ল্যাপটপ পরিষ্কারের পরে অবশ্যই নিজের হাত ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।

৯. দিনে একবার হলেও গ্যাজেট পরিষ্কারের অভ্যাস গড়ে তুলুন।

১০. অন্যের গ্যাজেট স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন এবং নিজের ডিভাইস অন্যদের দেয়া থেকেও বিরত থাকতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *