গরমেও পান উজ্জ্বল ত্বক

 প্রচণ্ড গরমে ঠাণ্ডা পানীয় অথবা এসি আমাদের রক্ষাকর্তা। গরম থেকে রক্ষা পেতে গরম সহিষ্ণু জামাকাপড়ও পরে থাকি। কিন্তু গরমে ত্বকের যত্নের কথাও আলাদা করে ভাবা প্রয়োজন। গরমে অতিরিক্ত তৈলাক্ত ও শুষ্ক ত্বকে ব্রণ দেখা দিতে পারে, বলিরেখার সৃষ্টি হতে পারে। অন্যদিকে, যাদের ত্বক একটু বেশি স্পর্শকাতর তাদের ফুঁসকুড়িসহ ত্বকে রোদে পোড়াভাবের সৃষ্টি হতে পারে। তাই গরমকালে ত্বকের বাড়তি যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। 

গরমে ত্বকের যত্ন নিতে বাড়িতে তৈরি কিছু ফেসপ্যাক হতে পারে চটজলদি সমাধান। গরমে ত্বকের বন্ধু হিসেবে কাজ করে,  এমন কিছু ফেসপ্যাক তৈরি ও তার ব্যবহার দেখে নেওয়া যাক।

. বেসন, দুধ ও হলুদের ফেসপ্যাক : বেসন, দুধ ও হলুদ গুঁড়া এক টেবিল-চামচ করে নিন। এ তিন উপাদান ভালো করে মিশ্রণ করুন। এবার এ ফেসপ্যাকটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ব্যবহার করলে এক সপ্তাহের মধ্যে ফলাফল চোখে পড়বে।

বেসন ত্বকের মরা কোষ দূর করে। দুধ ত্বকের আর্দ্রতার ভারসাম্য বজায় রাখে। আর হলুদ ত্বক উজ্জ্বল করে।

. শসা ও মালাইয়ের ফেসপ্যাক : গ্রেট করে কাটা অর্ধেক শসার সঙ্গে আধ-টেবিল চামচ মালাই যোগ করে ফেসপ্যাকটি তৈরি করুন। এটি মুখে ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

শসা ও মালাই ত্বক রোদে পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে।

. মুলতানি মাটি ও গোলাপ জলের ফেসপ্যাক : রূপচর্চায় মুলতানি মাটি অনেক আগে থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে। এটিকে আদিতম ফেসপ্যাকও বলেন অনেকে।

এক টেবিল-চামচ মুলতানি মাটির সঙ্গে এক টেবিল-চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে এই ফেসপ্যাকটি তৈরি করুন। এবার শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

এই ফেসপ্যাকটি ব্রণ প্রতিরোধ করে,  তাই অন্যান্য সময়েও ব্যবহার করতে পারবেন।

. টমেটো ও মধুর ফেসপ্যাক: রূপচর্চায় মধুও অনেক আগে থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে। টমেটো বেটে তাতে কিছুটা মধু দিয়ে দিন। এই মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে পনেরো মিনিট রাখার পর তা ধুয়ে ফেলুন।

এই ফেসপ্যাকটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সহায়তা করে।  

. লেবু ও মধুর ফেসপ্যাক : লেবু শুধু খাবারের স্বাদ বাড়ায় না,  রূপচর্চাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এক টেবিল-চামচ লেবুর রসের সঙ্গে এক টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে ফেসপ্যাকটি তৈরি করুন। এই ফেসপ্যাকটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।

প্রতিদিন এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে ত্বকে বলিরেখা পড়ার হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *