চাঁদে ভ্রমণ

প্রহাণ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা, ষষ্ঠ শ্রেণী ##

রাতের বেলা শুয়ে ছিলাম

দু’চোখে ঘুম ঠেসে,

তখনই কেউ বলে ওঠে

“যাবি নে আমার দেশে?”

হকচকিয়ে উঠে বসি

কার যে ছিল গলা।

কোন দেশেরই কথা বলে

কোথায় হবে চলা?

হঠাৎ দেখি উড়ছি আমি

আকাশেরই পানে,

মানুষ এমন উড়তে পারে

কেউ কখনও জানে?

হঠাৎ দেখি নামছি আমি,

মাটিতে সাদা ধুলো।

জায়গা কতক অসমতল

গর্ত কতকগুলো!

হাঁটতে হাঁটতে পায়ে ব্যথা

প্রচুর হল ঘাম,

হঠাৎ তখন দেখতে পেলাম

চাঁদের ছোট্ট গ্রাম।

গিয়ে দেখি অবাক হয়ে

চলছে সেথায় হুড়োহুড়ি,

সবাই মিলে দেখছে সেথা

চরকা কাটছে চাঁদের বুড়ি।

আগুন জ্বেলে নাচছে সবাই

করছে নানান মজা,

কেউ বা খাচ্ছে সিঙ্গারা, চপ

কেউ বা মিষ্টি গজা।

এখান থেকে বেরিয়ে এবার

ওদিক পানে গেলাম,

হেথায় বড় আঁধার রে ভাই

দেখতে নাহি পেলাম।

কোথায় যাচ্ছি, কি করছি

যাচ্ছে না তো বোঝা, 

হঠাৎ দেখি পড়ছি আমি

চাঁদের গর্তে সোজা।

ধড়মড়িয়ে উঠে দেখি

পড়ে আছি খাটের নিচে,

চাঁদের ভ্রমণ আসল কি নকল,

সত্যি, নাকি মিছে?  

3 thoughts on “চাঁদে ভ্রমণ

  • August 1, 2020 at 5:48 am
    Permalink

    বাহ্ দারুণ তো!

    Reply
    • August 2, 2020 at 5:15 pm
      Permalink

      বাহ্, খুব সুন্দর হয়েছে, প্রহান। আগের সংখ্যার গল্পও বেশ ভালো ছিল। আরও লেখো ।

      Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *