চালু হল ফাইভ জি

৫ এপ্রিল বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে বাণিজ্যিকভাবেই পঞ্চম প্রজন্মের (ফাইভজি) ইন্টারনেট সেবা চালু করেছে দক্ষিণ কোরিয়া।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়া স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের নতুন স্মার্টফোন গ্যালাক্সি এস১০ এর মাধ্যমে ফাইভজি সেবা শুরু করেছে।

ফাইভ-জি বর্তমান সচল ফোর-জি থেকে ২০ গুণ বেশি গতিতে কাজ করে। একটি পূর্ণাঙ্গ সিনেমা মাত্র ১ সেকেন্ডে ডাউনলোড করা যায়। লাইভ ভিডিও স্ট্রিমিংও আগের চেয়ে অনেকগুণ দ্রুত হয় এতে।

দক্ষিণ কোরিয়া এমন সময় এ প্রযুক্তি উদ্বোধন করেছে যখন চীন, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের মতো দেশগুলো এ প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা ও পরীক্ষা চালাচ্ছে। প্রযুক্তির এই যাত্রায় সবাইকে পেছনে ফেলছে দেশটি।

দেশটির শীর্ষ মোবাইল ফোন প্রতিষ্ঠান এসকে টেলিকমের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট রেও ইয়ং স্যাং বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার মোবাইল ফোন প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদের যে উন্নত ও আধুনিক সেবা দেওয়ার চেষ্টা করছে এটা তার একটি মাইলফলক।

ফাইভ-জি উদ্বোধন ও এর প্রচারের জন্য কোরিয়ায় কে-পপস্টার ও অলিম্পিকে গোল্ড বিজয়ী তারকাদের নিয়ে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এদিকে এ কথা শোনার পরই বিশ্বের প্রথম শহর হিসেবে ৫জি নেটওয়ার্ক চালু করার দাবি করেছে চীনের সাংহাই। শনিবার সাংহাই এর হংকু অঞ্চলে এই কার্যক্রম শুরু হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র চায়না ডেইলি।

চায়না ডেইলির খবরে বলা হয়েছে, সাংহাই এর হংকু এলাকায় ইতিমধ্যেই একই সঙ্গে ৫জি এবং ব্রডব্যান্ড গিগাবাইট নেটওয়ার্ক চলেছে। প্রসঙ্গত, আগামী প্রজন্মের মোবাইল যোগাযোগের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশের তুলনায় নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের জন্য উঠে পড়ে লেগেছে চীনও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *