চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে লেবু

চুল নিয়ে অনেকেই নানা ভাবে চিন্তিত বা উদ্বিগ্ন থাকেন। কিন্তু আমাদের নাগালের মধ্যেই এমন কিছু জিনিস আছে যা নিয়মিত ব্যবহারে চুল মজবুত হয়ে উঠবে। এতে হেয়ারফল-এর হার তো কমেই, সেই সঙ্গে চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেতেও সময় লাগে না। লেবু কীভাবে চুলের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে, সে বিষয়ে আলোচনা করা হবে। প্রসঙ্গত, বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে লেবুতে থাকা ভিটামিন সি, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং আরও নানাবিধ উপকারী উপাদান চুলের উপকারে দারুণ ভুমিকা রাখে।

সাদা চুলকে নিমেষে কালো করতে

অসময়েই কি চুল পেকে যাচ্ছে! তাহলে লেবু এবং হেনাকে কাজে লাগিয়ে বানানো হেয়ার মাস্ক চুলে লাগাতে ভুলবেন না যেন। আসলে হেনা হল প্রাকৃতিক ডাই, যা সাদা চুলকে নিমেষে কালো করে, অন্যদিকে স্ক্যাল্পে পুষ্টির ঘাটতি দূর করতে লেবু বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে ৫ টেবিল চামচ হেনা পাউডারের সঙ্গে ১ টা ডিমের কুসুম এবং ১ কাপ গরম জল মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে তাতে মেশাতে হবে ১ চা চামচ লেবুর রস। তারপর এই মিশ্রনটি চুলের গোড়ায় ভাল করে লাগিয়ে ১ ঘন্টা রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ফেলতে হবে চুলটা।

হেয়ার গ্রোথ-এর জন্য

একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে লেবুকে কাজে লাগিয়ে চুলের পরিচর্যা করলে স্ক্যাল্পের কোলাজেনের উৎপাদন বেড়ে যেতে শুরু করে। সেই সঙ্গে চুলের গোড়ায় প্রদাহের মাত্রা কমতে থাকে। ফলে হেয়ারফল-এর মাত্রাতো কমেই, তার পাশাপাশি চুলও বাড়ে বেশ সুন্দরভাবে। এখন প্রশ্ন হল, এমন সুফল পেতে কীভাবে কাজে লাগাতে হবে লেবু। এক্ষেত্রে একটি বাটিতে পরিমাণ মতো লেবুর রস নিয়ে তা চুলের গোড়ায় ধীরে ধীরে লাগিয়ে নিতে হবে। তারপর ১০ মিনিট অপেক্ষা করে ভাল করে ধুয়ে ফেলতে হবে চুলটা। প্রসঙ্গত, সপ্তাহে মাত্র একবার এইভাবে চুলের পরিচর্যা করলেই দেখবেন দারুণ  উপকার মিলতে শুরু করেছে।

চুলের গোড়া মজবুত করতে

এক চা চামচ লেবুর রসের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ ডাবের জল মিশিয়ে মিশ্রণটি স্ক্যাল্পে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর সালফার ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন চুলটা। এত দূর পড়ার পর নিশ্চয় ভাবছেন এই মিশ্রণটি চুলে লাগালে কেমন উপকার পাওয়া যায়, তাই তো? গবেষণা বলছে, এই ঘরোয়া হেয়ার প্যাক-টি সপ্তাহে অন্তত একবার লাগালে চুলের গোড়া এত মজবুত হয় যে চুল পড়ার হার কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে চুলের সৌন্দর্যও বৃদ্ধি পায় চোখে পড়ার মতো।

চুলের গোড়ায় সংক্রমণ কমাতে

২ চা চামচ অ্যালোভেরা জেলের সঙ্গে ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে মিশ্রণটি স্ক্যাল্পে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ১-২ বার চুলের পরিচর্যা করলে স্ক্যাল্পের পুষ্টির ঘাটতিতো দূর হবেই, সেই সঙ্গে চুলের গোড়ায় কোনও ধরনের সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কাও কমে যাবে।

ড্যামেজড হেয়ার-এর রিকভারি-তে

লেবুর রস, রেড়ীর তেল এবং অলিভ অয়েল- এই প্রাকৃতিক উপাদানগুলোকে নির্দিষ্ট মাত্রায় মিশিয়ে চুলে লাগাতে শুরু করলে হেয়ারফল-এর মাত্রা কমতে থাকে। সেই সঙ্গে হেয়ার ড্যামেজ এবং চুলের গোড়া নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কাও কমে। এক্ষেত্রে ২ চামচ অলিভ অয়েল-এর সঙ্গে ১ চামচ রেড়ীর তেল এবং ৫ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মিশ্রণটিকে অল্প করে গরম করে নিন। তারপর তেলটি ১৫ মিনিট চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করে আরও ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ভাল করে ধুয়ে ফেলুন চুলটা। প্রসঙ্গত, সপ্তাহে ২-৩ বার এই তেলটি মাথায় লাগাতে হবে। তাহলেই কিন্তু উপকার মিলবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *