ডায়াবেটিস চিকিৎসায় নতুন দিশা অস্ট্রেলিয়ান গবেষকদের

বিশ্বে ৪০ কোটি মানুষ টাইপ-২ ডায়াবেটিসে ভুগছেন। অস্ট্রেলিয়ান গবেষকরা প্রথমবারের মতো ডায়াবেটিস টাইপ-২ নিরাময়ের উপায় উদ্ভাবন করেছে। ইউনিভার্সিটি অব মেলবোর্নের গবেষকরা দাবী করেছেন, মানুষের শরীরে প্রাকৃতিকভাবে তৈরি একটি প্রোটিন ব্যবহার করে ডায়াবেটিস টাইপ-২ নিরাময় সম্ভব এবং এটি বর্তমান চিকিৎসা পদ্ধতির চেয়ে বেশী কার্যকর। বর্তমান পদ্ধতি স্বল্পস্থায়ী এবং এর উল্লেখযোগ্য পাশ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে।
গবেষকদল এসএমওসি-১ নামে একটি প্রোটিনের সন্ধান পেয়েছেন, এটি প্রাকৃতিকভাবেই মানুষের লিভারের মধ্যে তৈরি হয়। এই প্রোটিন রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমিয়ে দিতে পারে। এসএমওসি-১ রক্তে উচ্চমাত্রায় গ্লুকোজ রয়েছে এমন ডায়াবেটিস টাইপ-২ রোগীর চিকিৎসায় কার্যকর সম্ভাবনা তৈরি করেছে। গবেষকরা কৃত্রিমভাবে উদ্ভাবিত এসএমওসি-১ প্রাণী দেহে পরীক্ষা চালিয়ে কার্যকরভাবে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছেন।
মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র গবেষক ম্যাগডালিন মন্টগোমারি বলেছেন, ‘মেটফর্মিন নামক বর্তমান ফ্রন্টলাইন ওষুধের চেয়ে রক্তের গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রনে এটি আরো বেশী কার্যকরী।’ ‘এটি ফ্যাটি লিভার এবং রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রাও হ্রাস করে, যা ডায়াবেটিস-২ টাইপ রোগীদের সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা।’ মন্টগোমারির মতে, বিশ্বে বিপুল সংখ্যক মানুষ ডায়াবেটিস টাইপ-২ আক্রান্ত এবং তাদের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। এই নতুন চিকিৎসা পদ্ধতি এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *