ত্রয়ী

তাপস কুমার মুখোপাধ্যায় ##

কবিতা ১

রাত দুটোয় দরজায় নক্
মেয়ের স্টাডিতে বাপ কাঁপে ঠক ঠক |
ভীরু বুকেতে ওঠে হাঁপোরের হাঁপ,
কাব্যখাতায় গড়া গড়ি দেয় খোলা কলমের খাপ |


কম্পিত স্বরে, দরজার আড়ে,
সাড়া নিতে ডাকে – ‘কে – রে’ |
রমনী কন্ঠে উত্তর আসে,
‘কবিতা ছাড়া এ-রাতে কে আসে?’

বিব্রত বাপ, এত রাতে এ কোন যামিনী,
ওঘরে তার নিদ্রা মগ্ন জীবন সঙ্গিনী |
স্বার্থলোলুপ আকাঙ্খা তার,
উত্তেজনায় খুলে দিল দ্বার |


অ-পলক চোখে একি দেখে বাপ,
স্তম্ভিত চোখ, নেই কোন পাপ |
এ যে তারি রচিত কাব্যের প্রণয়িণী
অপরূপ যৌবনা নিষ্কলুষ রমনী |

রমনী বলে – ‘এলেম চলে দিতে ধরা
“কবিতা” আমি, নই কোন উর্ব্বশী – অপ্সরা’|
‘ছন্দে, ধন্দে, ভাষার খেলাতে
ভাসাও আমাকে কাব্য ভেলাতে |


কর সর্বসুন্দরী, তব শব্দ, ছন্দ, ভাষাতে,
হে স্রষ্টা, আজ এসেছি নতুন সাজের আশাতে’|
‘সাজিয়ে নব সাজে আঁকো না আমায় কবি,
দেখুক লোকে আমার জীবন্ত এক ছবি |

*****

কবিতা ২

গড়া গড়ি খায় শুধু বই, পেন, খাতা,

কড়া নেড়ে আসেনা আমার সে ‘কবিতা’|

কত রাত মিলে মিশে একসাথে,

থেকেছি বিনিদ্র খাতা-পেন আর ‘কবিতা’ তে |

বিব্রত রজনী কত কেটেছে অজানা ত্রাসে,

তবু ‘কবিতা’ আমার সদাই থেকেছে পাশে |

অবাধ ছিল তার যাওয়া-আসা, মেলা-মেশা,

দুজনার হৃদয়ে ছিল কত শত সৃষ্টির নেশা |

কত কৃষ্টি মোদের আজও সৃষ্টির অপেক্ষায়,

কে জানে, কার তাতে কি বা আসে যায় |

মোদের মেলা-মেশায় সবে দিয়েছে নজর,

সাজিয়ে রেখেছে যুক্তি আর মিথ্যা ওজর |

জানি এ অদেখা হয়তো বা সাময়িক,

আশা তাই ফের মোরা মিলব যে দৈনিক |

আঁকব তোমায় যতন করে দিয়ে নতুন সাজ,

                        অলঙ্কারে ঢাকব তোমার সকল দৈন্য লাজ |

                            মুগ্ধ হয়ে থাকবে চেয়ে আমার ‘কবিতা’ তে,

                            নাচব আমি, গাইব আমি, নব সৃষ্টি সুখেতে |

                                ঈর্ষাকাতর মানুষগুলো অবাক হয়ে রবে,

                                ‘কবিতা’, তোমার আমার আবার মিলন হবে |

******

কবিতা ৩

আজও আছি বসে কাগজ কলম হাতে-

মোর প্রিয়ার অপেক্ষাতে|

কোথা সে জানিনা, জানি হবেই হবে দেখা-

অপেক্ষায় জ্বালিয়ে দ্বীপশিখা|

কত রাত বিনিদ্র বসে কাগজ আর লেখনীতে-

আঁকিবুকি কাটিতে কাটিতে|

আসেনা ছন্দ-মিল কিছু, তুঁহু বিনা এ নীড়ে,

সব হ-য-ব-র-ল র ভীড়ে|

‘কবিতা’ প্রেয়সী আমার, ছন্দহীন আর কতকাল?

হ’ক শেষ এ বিরহকাল|

একবার, শুধু একবার আয়, ‘কবিতা’ আমার

রেখেছি উন্মুক্ত সকল দ্বার|

বিরহ যাতনা ছিন্ন করে আয় রে আমার কাছে,

তোরে যে প্রয়োজন আছে|

জানি আসবি, তুই আসবি ফিরে প্রিয়া আবার

ছন্দনীড় হবে জোরদার|

তোরই ছন্দে উঠবে ভোরে আমার কাব্য খাতা,

নব ছন্দে রচিত অমর-প্রেমগাথা|

*****

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + fourteen =