পাহাড়ের চোখে জল

বন্দনা বেরা ##

আমি অকপটে বারবার হেরি,

সুন্দর তুমি বর্তমানেও থাকো,

স্মৃতি হতে করো নাকো দেরি।

আমি কোলাহলে এক নির্জন অসীম পাগল পারা,

প্রেমিক তুমি নাইবা হলে আমা ভাবনা হারা,

তুমি নিছকই নও জলের অবারিত ধারা।

বর্তমানের মতোই স্মৃতির পর্দায় বাসবো ভালো,

অন্ধকারেও তুমি মুক্ত হয়ে দিও আলো,

সব জঞ্জাল ভাসিয়ে স্বচ্ছ ধারায় ভালোবাসা ঢালো।

সবুজ ধ্বংস করে কোথা হতে আসে তব ধারা,

তথাকথিত ধ্বংসেই লুকিয়ে থাকে সৃষ্টি,

তুমি নিজেকে গলিয়ে ফসল ফলাও বৃষ্টি হয়ে,

পাথরের সবুজ সৃষ্টি করেও হওনি সারা।

ওই যে কালো কালো মুখ যারা পাথর কাটছে, রাস্তা বানাচ্ছে ওরা কারা?

এমন কেউ কি নেই ওদের জীবন চেনে যারা,

পাথর গুলো বোধহয় ওদের জীবনেও থাবা ফেলেছে,

আর ঝর্ণার জল বুঝি ওদের চাপা কান্না ধারা।

কোন আলোকিত সবুজই ওদের জীবনে ফোটেনি ,ফোটেনি অঙ্কুরিত বীজের চারা,

সব হারিয়েও জীবন সংগ্রামে টিকে থাকার লড়াইয়ে তারা হয়নিতো হারা,

ওদের স্তব্ধ প্রাণ, মলিন দেহ, চঞ্চল চাহুনি দেখে কক্ষনো করোনা দয়া ভিক্ষা,

সব জ্ঞান হয় না কেবল পুঁথির পাতায়… পাথরে ফুল ফোটানোর ধৈর্য্য আর নিজের ওপর বিশ্বাস রাখার নাও ওদের থেকে শিক্ষা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *