বাইরে খেয়েও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কিভাবে

ওজন কমানোর জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে একটি হল ডায়েট করা এবং প্রিয় জাঙ্ক ফুডকে বিদায় জানানো। কিন্তু ওজন কমানোর মিশনে নেমে বাইরের খাবার খেয়ে পেট বোঝাই করাও কোনো কাজের কথা নয়। তাহলে দুটির সমন্বয় কীভাবে করবেন? যখন আপনি রেস্টুরেন্টের খাবার অল্প করে খাবেন, তখন এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা অনেকটা সহজ হবে। চিন্তার কিছু নেই। আপনি অবশ্যই বন্ধুদের সঙ্গে বাইরে খেতে যাবেন, তবে সপ্তাহে একবারের বেশি নয়। সেইসঙ্গে ওজন কমানোর বিষয়ে উদ্বিগ্ন না হলে ডায়েট থেকে যে খাবারগুলো বাদ দিয়েছেন, সেগুলো এড়িয়ে চলবেন। বন্ধুদের সঙ্গে সময়টুকু উপভোগ করুন। ওজন নিয়ে দুশ্চিন্তা করে আনন্দ নষ্ট করবেন না। বাইরের খাবার খেয়েও ওজন কমানোর উপায় জেনে নিন-

 পানীয়তে সতর্ক হোন

পানীয় পান করার ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে। অনেকেই কোমল পানীয় খেয়ে নেন এই মনে করে যে, এটি সামান্য তরল, ওজন বাড়াতে এর ভূমিকা থাকে না! আসলে কিন্তু তা নয়। কারণ বেশিরভাগ কোমল পানীয়তেই থাকে প্রচুর সুগার, সোডা ইত্যাদি। তাই গলা ভেজানোর আগে নিশ্চিত হয়ে নিন আপনার পানীয়তে অতিরিক্ত সুগার, সোডা কিংবা ভারী ক্রিম নেই তো।

খাবারের পরিমাপের দিকে খেয়াল করুন

পরিমাপ না জেনে খেয়ে নিলে তা আপনার ওজন অনেকটাই বাড়িয়ে তুলতে পারে। বিশেষ করে পিজ্জা বা পাস্তা জাতীয় খাবার বেশি খেয়ে ফেললে আপনার ওজন কমানোর যাত্রা ব্যহত হতে পারে। তাই সীমিত পরিমাণ খেতে হবে। সেইসঙ্গে মুখরোচক খাবারের বিকল্প হিসেবে বেছে নিতে হবে সালাদ, সবজি, ফল ইত্যাদি।

বাইরে খাওয়ার আগে বাড়ি থেকে খেয়ে যান

রাতে বাইরে খাওয়ার পরিকল্পনা থাকলে অনেকেই দিনের বেলা কম খান। বাইরে খেতে গেলে যেন বেশি খেতে পারেন। আপনার যদি এই অভ্যাস থাকে তবে সেটি দূর রতে হবে। কারণ আপনি যখন ক্ষুধার্ত অবস্থায় সেখানে পৌঁছাবেন, তখন খুব স্বাভাবিকভাবেই সেখানকার খাবারগুলো আপনাকে আকর্ষণ করবে। তাই আপনি যদি ওজন কমাতে চান তাহলে বাইরে খেতে যাওয়ার আগে বাসা থেকে কিছু খেয়ে হোন। সেইসঙ্গে রেস্টুরেন্টে গিয়ে স্বাস্থ্যকর খাবারের দিকে বেশি মনোযোগ দিন।

স্যুপ বা সালাদ দিয়ে খাবার শুরু করুন

বাইরে খেতে যাওয়ার মূল উদ্দেশ্য যদি হয় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া তবে আপনি সেখানে কী খাচ্ছেন এটি মূখ্য বিষয় নয়। বন্ধুরা তাদের পছন্দমতো খাক, আপনি খান আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী। বেছে নিন স্বাস্থ্যকর খাবারগুলো। হতে পারে তা স্যুপ কিংবা সালাদ। শুরুতেই এ ধরনের খাবারগুলো খেলে জাঙ্ক ফুডের প্রতি আকর্ষণ অনেকটা কমে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine − 6 =