বেগুনি দ্বীপের গল্প

সেতু থেকে বাড়ি, দোকান থেকে রাস্তা, ফুল থেকে প্রকৃতি, সবই সেজেছে বেগুনি রঙে।  দক্ষিণ কোরিয়ার বানওল ও বাকজি দ্বীপের নামই হয়ে গেছে ‘পার্পল আইল্যান্ডস’। এখানেই শেষ নয়, এলাকার সঙ্গে মানানসই করতে  একই রঙের পোশাক পরছেন স্থানীয় অধিবাসীরাও। জানা গেছে, পর্যটকদের আকর্ষণ করতেই এমন পদক্ষেপ করা হয়েছে।

শোনা গিয়েছে অপরাজিতা ফুল থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে পুরো দ্বীপটি বেগুনি রং ধারণ করায় পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে।  ২০১৯ সালে ভ্রমণের জন্য খুলে দেওয়ার হয় এই দ্বীপ। এখনও পর্যন্ত ৫ লক্ষেরও বেশি পর্যটক এই দ্বীপে এসেছেন। মজার কথা এখানকার খাবারও বেগুনি রঙের। রেস্তোরাঁগুলোতে বিটরুট আর ফুলের রস দিয়ে রান্না করা বেগুনি রঙের খাবার পরিবেশন করা হয়। 

বেশিরভাগ বাসিন্দা শহর ছেড়ে চলে যাওয়ায়  অনেকটাই পরিত্যক্ত ছিল দ্বীপগুলো। তবে স্থানীয় লোকজন ও প্রশাসনের উদ্যোগে এসব দ্বীপ এখন পরিণত হয়েছে আকর্ষণীয় পর্যটনকেন্দ্রে। দ্বীপদুটি আবারো প্রাণ ফিরে পাওয়ায় আনন্দিত বাসিন্দারাও। 

দক্ষিন কোরিয়ার দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলীয় ব্যানোল আর বাকজি দ্বীপের কথা এতদিন অজানাই ছিল অনেকের কাছে। তবে অভিনব কায়দার কারণেই দেশে বিদেশে ছড়িয়ে পড়েছে দ্বীপ দুটির সুনাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *