রক্তের দাগ

      প্রবীর রায়, হিলি, বাসুদেবপুর, দঃদিনাজপুর ##


আমি শ্রমিক,আমি মজদুর,আমি ওদের পথেই হেঁটেছিলাম
ওরা কথা দিয়েছিলো, সর্বদাই পাশে থাকবে ছায়ার মতন
চিরকাল আগলে রাখবে,কখনোই বিপথগামী হবেনা
সেই আশাই তাদের জন্য লড়ে চলেছি আজও, নিজেকে কবর দিয়ে
ভেবেছিলাম হয়তো কোনোদিন নূতন সূর্য উঠবে এই আঁধার গগনে
তাই রক্তের দাগগুলোকে লুকিয়ে রেখেছিলাম এক অন্য চরিত্রের মঞ্চে
ওরা কখনোই বুঝতে দেয়নি, যে তাদের প্রণয়ের মাঝে ছিল ভরপুর কূটবুদ্ধি
আজ যখন প্রয়োজন শেষ,তারা আর চিনতে পারছেনা আমাকে
আমাকে নিয়ে ঠাট্টা করছে,অবজ্ঞা করছে আমি দুর্বল বলে
হে নব যুগের আলোকশিশুগণ তোমরা কতটা সুরক্ষিত তা জানিনা
তাই আমি তোমাদের বলছি,তোমরা নিজেদের চিনতে শেখো
তোমরা নিজেদের মতো করে বাঁচতে শেখো,এই পাষাণ পৃথিবীতে
জানি তাতে বহু বাঁধা-বিপত্তি আসবে,শত্রুও পদেপদে অপেক্ষা করবে
তবে তাতে ভীত না হয়ে,রক্তের দাগকে শক্তি করে লড়তে হবে,বাঁচতে হবে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *