রাত্রির নাম কবিতা

সংযুক্তা পাল, দক্ষিন ২৪ পরগনা

 

আমারও তো ইচ্ছে করে রাতগুলো কবিতায় কাটুক;

একটু না হয় অতিক্রম করলে খিদে

রোজই তো গিলে ফেলো প্যাকেট প্যাকেট

ওষুধের মত মাংসল নির্যাস।

হিসেবের কড়িকাঠ গুনে গুনে হাঁপাতে হাঁপাতে

রোজই তো সময়কে খামচে ধরে এগোও,

আজ না হয় একটু থমকে গেলো এগোনোর অভ্যেস;

সজীব স্নায়ুতন্ত্রে মৃত কোষগুলো হাই তুলতে তুলতে

ভাবতে থাকে সৃষ্টির সংজ্ঞা,

ভাবার কাজটাও তো খাটো নয়;

ওপর থেকে নিচে তোমার লাফান দড়ির কৌশলকে আয়ত্ত করে

যে পারদর্শী মাথা এড়িয়ে চলে সমস্ত প্রকার বৌদ্ধিক অনুষঙ্গ

সেও একদিন ভুল করে বলে ফেলে ‘গান কই?’

বলে ফেলে, ‘ ইচ্ছেরা ও……..ই মিশেছে দেখ

বর্ণে বর্ণে, অক্ষরে অক্ষরে।

সব রাত তো ধূসর নয়!

কিছু আঁধারেও তো জ্বলে আঁধারমানিক,

কিছু অমাবস্যাও গড়ে তোলে দীপান্বিতা।

তোমার রাতের ব্যাধি থেকে আমিও বেরোতে চাই কবিতায়।

স্বপ্নের শবদেহ যে মাটিতে রেখে

বারংবার শুঁকে ফেরে উন্মত্ত শৃগাল

সে মাটিতেই নিকোবো কবিতার উঠোন;

বোধের ঘরে মন্ত্র পড়ে জাগাবো হৃদয়- কালী

শরীর যার পায়ের তলায় শোবে শিব হয়ে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *