শীতকালের আম

গরমকাল এলেই আমরা যে সব ফলের দেখা পাই তার মধ্যে সব চেয়ে উল্লেখযোগ্য নাম আম। আমকে মূলত গ্রীষ্মের ফল হিসেবেই ধরা হয়। বারো মেসে কিছু আম থাকলেও সেগুলি বছর ভর ফল দেয়। কিন্তু এই আম শুধুমাত্র শীতকালেই হয়। এর দামও বেশ চড়া, বলতে গেলে মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে।

এক একটি আমের দাম ২৩০ ডলার। যা টাকার হিসাবে প্রায় কুড়ি হাজার টাকার কাছাকাছি। জাপানের এক ব্যক্তি এই দামেই চাষ করা ওই আম বিক্রি করছেন। আর প্রচুর পরিমাণে বিক্রিও হচ্ছে সেই আম। ওই কৃষকের নাম হিরোউকি নাকাগাওয়া। বয়স ৬২ বছর। বাড়ি জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপে। আমটির নাম রেখেছেন হাকুজিন নো তাইয়ো অর্থাৎ ‘বরফের মধ্যে সূর্য’। ২০১১ সাল থেকে ওই আম চাষ করছেন তিনি, তবে এক বিচিত্র কৌশলে। কোনও এক সময় মিয়াজাকি অঞ্চলের এক আম কৃষকের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। ওই ব্যক্তির দাবি ছিল, শীতেও আম ফলানো সম্ভব। এরপরই তাঁর নির্দেশ মেনে গ্রিনহাউস পদ্ধতিতে আম চাষ শুরু করেন নাকাগাওয়া।
 


আম চাষে হোক্কাইডো দ্বীপের দুটি প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহার করছেন নাকাগাওয়া। একটি বরফ, অপরটি গরম জল। শীতকালে সংরক্ষণ করে রাখা বরফ গ্রীষ্মকালে গ্রিনহাউস ঠান্ডা করতে কাজে লাগান তিনি। আর  শীতকালে গ্রিনহাউস গরম করতে ব্যবহার করেন প্রাকৃতিক গরম জল। এভাবে প্রতি মরশুমে প্রায় পাঁচ হাজার আম উৎপাদন করেন নাকাগাওয়া।
 
আমগুলো শীতকালে পাকে। তখন পোকামাকড়ের উপদ্রব থাকে না। তাই কীটনাশকেরও প্রয়োজন পড়ে না। আর হোক্কাইডোর বাতাসের কম আর্দ্রতার কারণে আমের গায়ে তেমন একটা দাগ পড়ে না। ফলে খুব একটা রাসায়নিক ব্যবহার করতে হয় না। নাকাগাওয়া বলেন, হোক্কাইডোতে আমি প্রকৃতির বাইরে গিয়ে প্রাকৃতিক কিছু করতে চেয়েছিলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + fifteen =