সোনার হার খেয়ে ফেলল গরু, তার পর?

গরুকে পুজা করতে গিয়ে তার গলায় সোনার হার, ফুলের মালা পরিয়েছিলেন মালিক। ফুলের মালার সঙ্গে সেই হারও খাবার ভেবে গিলে ফেলেছিল গরুটি। শেষমেশ অস্ত্রোপচার করিয়ে পাকস্থলী থেকে চেইনটি উদ্ধার করা হয়। ঘটনা কর্নাটকের উত্তর কন্নড় জেলার হেপানাহাল্লির।

 দিপাবলীর দিন বাড়িতে গরু পুজার আয়োজন করেন শ্রীকান্ত হেগড়ে। বাড়িতে পোষা একটি গরুর গলায় ফুলের মালা ও ২০ গ্রাম ওজনের সোনার হার পরিয়ে পুজা করেন তার পরিবারের সদস্যরা। পুজা শেষ হয়ে যাওয়ার পর ফুলের মালা এবং স্বর্ণের হারটি গরুর পাশেই রেখে দেন শ্রীকান্ত। সবাই যখন পুজার কাজে ব্যস্ত তার মধ্যেই গরুটি পাশে রাখা ফুলের মালার সঙ্গে সোনার হারটিও খেয়ে ফেলে।

বেশ কিছু সময় পর যখন হারটি নিতে যান শ্রীকান্ত, দেখেন গরুর পাশ থেকে সেটি উধাও। খবরটি চাউর হতেই হেগড়ে বাড়িতে হুলস্থুল পড়ে যায়। সারা বাড়ি তন্ন তন্ন করে খুঁজেও যখন হার পাওয়া যায়নি, সকলের সন্দেহ হয় গরুর ওপর। ফুলের মালার সঙ্গে রাখা সোনার হার যে তাদের পোষ্যই খেয়ে নিয়েছে তা একপ্রকার নিশ্চিত হন শ্রীকান্ত।

অতএব অপেক্ষা করা ছাড়া আর উপায় ছিল না। শ্রীকান্তরা ভেবেছিলেন গরুর গোবরের সঙ্গেই চেইনটি হয়ত বেরিয়ে আসবে। এক মাস অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও সেই হার না পেয়ে আর ধৈর্য রাখতে না পেরে শ্রীকান্ত খবর দেন পশু চিকিৎসককে। গরুর পেটে স্ক্যান করে হারের অবস্থান চিহ্নিত করেন চিকিৎসক। তারপর অস্ত্রোপচার করে সেই হার বের করা হয়। কিন্তু এই এক মাসে পাকস্থলীতে থেকে ২ গ্রাম ক্ষয়ে গিয়েছিল হারটি। অর্থাৎ ছিল ২০ গ্রাম, চেইনটি যখন উদ্ধার হয় তখন সেটির ওজন হয়েছিল ১৮ গ্রাম। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 + 13 =