স্টেশনের জন্মদিন

বিজয় মুখোপাধ্যায় ##

জন্মদিন বলে কথা। সাজো সাজো রব বেশ কয়েকদিন ধরেই। আট থেকে আশি সকলেই রীতিমত উত্তেজিত এবং আনন্দিত এই জন্মদিন পালন নিয়ে। তাই তো একবার নয় দু দুবার কেক কেটে রীতিমত জাকজমক সহকারে পালন করা হল স্টেশনের জন্মদিন। হ্যা ঠিকই পড়েছেন, এই জন্মদিন গোবরডাঙা রেল স্টেশনের। পালন করলেন গোবরডাঙাবাসী।  

১৪০ বছর আগে ১৮৮৩ খ্রিস্টাব্দে ৭ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ন’টায় প্রথম শিয়ালদহ থেকে গোবরডাঙায় এসেছিল ট্রেন। সেই কথা মাথায় রেখেই, দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে রাতেই গোবরডাঙা স্টেশনে জন্মদিন পালন হয়। এ ছাড়াও নানা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে দিনটিকে পালন করা হল গোবরডাঙা বাসীদের তরফে।

 শীত উপেক্ষা করেই এ দিন স্টেশনে রাত বারোটার সময়ে জন্মদিনের পার্টিতে হাজির হয়েছিলেন বেশ কিছু মানুষজন৷  টিকিট কাউন্টার-সহ গোটা স্টেশন চত্বর সাজানো হয়েছিল ১৪০টি প্রদীপ ও বেলুন দিয়ে৷ গোবরডাঙা স্টেশনের বেশ কিছু পুরনো ছবিও তাঁরা সকলের সঙ্গে শেয়ার করেন৷ নিজেদের বক্তব্যর মাধ্যমে রেল যাত্রার নানা অভিজ্ঞতার কথাও তাঁরা ভাগ করে নেন।

দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে গভীর রাতেই গোবরডাঙা স্টেশনে জন্মদিন পালন করার কথা ভাবেন এই স্টেশন দিয়ে নিত্যদিন যাতায়াত করা এই শহরের বাসিন্দাদের একাংশ। সবটাই আয়োজন করেছিলেন এই শহরের রেলযাত্রীরা। শুধু তাই নয়, এদিন বিকেলেও গোবরডাঙা স্টেশনের ১৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে স্মারক গ্রন্থ প্রকাশের পাশাপাশি আলোচনা সভা, নাচ, গান, বক্তৃতার আয়োজন করা হয়েছিল স্টেশন চত্বরেই।

গোবরডাঙা রেল যাত্রী সমিতির উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বহু মানুষ। এদিন বিকেলের এই অনুষ্ঠানেও কেক কাটা হয়। লজেন্স ও কেক বিতরন করা হয় উপস্থিত সকলের মধ্যে। কেক কাটেন প্রতিষ্ঠা দিবস কমিটির আহ্বায়ক পবিত্র কুমার মুখোপাধ্যায়। এই উপলক্ষে একটি স্মারক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়। প্রকাশ করেন গোবরডাঙার পুরপ্রধান শঙ্কর দত্ত। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সমিতির সভাপতি প্রবীর মজুমদার, ডঃ সুনীল বিশ্বাস, রাসমোহন দত্ত, সমীরকিশোর নন্দী, দীপক কুমার দাঁ প্রমুখ বিশিষ্ট জনেরা। বনগাঁ লোকাল নিয়ে প্যারোডি গান করে তাক লাগিয়ে দেন সুখেন দাস, স্বরচিত কবতা পাঠ করেন ধীমান রায়। এছাড়াও নৃত্য এবং সঙ্গীত পরিবেশন করেন স্থানীয়রা।    

কিন্তু এতো শুধু স্টেশনের বর্ষপূর্তি নয়। একটি জনপদের উন্নয়নের পথে পা বাড়ানোর দিন। রেলপথ একটা শহরের লাইফ-লাইন। শিয়ালদহ- বনগাঁ শাখার প্রাচীন স্টেশনগুলির মধ্যে অন্যতম এই গোবরডাঙা স্টেশন৷ সেই স্টেশনের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে কত গল্প৷ সেই স্মৃতি সকলে মনে সাজিয়ে রাখবে৷ তার জন্যই তো এত আয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + nine =