স্নাতক হতে গেলে লাগাতে হবে গাছ

প্রথাগত শিক্ষার মাঝেই লুকিয়ে থাকে সামাজিক দায়বদ্ধতার পাঠও। সামাজিক দায়িত্ব বোধের জায়গা থেকে শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে এবার অভিনব উদ্যোগ নিল দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ফিলিপিন্স। স্নাতক হতে হলে লাগাতে হবে চারা গাছ৷ গাছ লাগানোর বিষয়ে সচেতনতা তৈরিতে এই অভিনব আইন চালু করেছে সে দেশের সরকার। নতুন এই আইনে কোনো শিক্ষার্থীকে গ্র্যাজুয়েশন পাস করতে হলে কমপক্ষে দশটি করে গাছ লাগাতে হবে। 

এই আইনের ফলে গাছ লাগানোকে একটি ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠানের স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। জলবায়ু দিনদিন পরিবর্তিত হচ্ছে৷ বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাবে পরিবেশ, আবহাওয়া সমস্ত কিছু বদলে যাচ্ছে৷ সেই কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সরকার পক্ষের দাবী৷

ফিলিপিন্সের ম্যাগডালো পার্টির মুখপাত্র ও এই আইনের লেখক গ্রে অ্যালিজানো বলেন, ফিলিপিন্সে প্রতি বছর বিশাল সংখ্যক পড়ুয়া স্নাতক ডিগ্রি পায়। সংশ্লিষ্ট দফতরের আধিকারিকরা পরিসংখ্যান করে দেখেছেন, যত সংখ্যক ছাত্র প্রতি বছর স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করে, তারা যদি প্রত্যেকে ১০টি করে গাছ লাগায়, তাহলে প্রায় সাড়ে ১৭ কোটি নতুন গাছ রোপণ করা যাবে। যা পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করতে বিশেষ সাহায্য করবে বলে আশা করছেন পরিবেশ বিদরা। শিক্ষার পাশাপাশি যদি পর্যাপ্ত বনসৃজনও করা যায়, সেদিকেই তাকিয়ে সেদেশের সরকার।

এসব গাছ ম্যানগ্রোভ বন, বিদ্যমান কোনো বন, সুরক্ষিত এলাকাসমূহ, সেনা এলাকা, পরিত্যক্ত খনি এলাকা এবং নির্দিষ্ট কিছু শহুরে এলাকায় লাগানো হবে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অবস্থান অনুযায়ী রোপণের জন্য গাছের প্রজাতি নির্ধারণ করা হবে এবং দেশীয় গাছে প্রাধান্য দেওয়া হবে। দেশের শিক্ষা অধিদপ্তর এবং উচ্চ শিক্ষা কমিশন একসঙ্গে এটি বাস্তবায়নে কাজ করবে।

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বন উজাড়ের একটি দেশ ফিলিপিন্স। ২০ শতকে দেশটির ৭০ শতাংশ বনাঞ্চল ২০ শতাংশে এসে ঠেকেছে। অবৈধভাবে গাছ কাটার ফলে এমন সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে যা এখন উদ্বেগজনক রূপ নিয়েছে। কিছু এলাকায় গাছের অভাবে বন্যা ও ভূমিধ্বসের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *