অদিতি চক্রবর্তী 

আলগোছে তুলে রাখি আধখানা সুখ
রঙচটা মুখে ঘনকালো কর্কশ রাত
এসে যদি ছুঁয়ে যায় বৃষ্টিভেজার মৌতাত !
এলি বুঝি মনে করে বুনে চলি বেড়ার বাঁধন
অকারণ হাসি,কাঁদি,চৌরাস্তার বাঁকে দৌড়াই
লাল শাড়ী ছেড়ে চটপট তুলি গা’গতরে মিঠে জলপাই।
বেপরোয়া উড়ো চুল কুড়িয়ে কুড়িয়ে দেবে তোর আঙুল
চুলে তাই রাখিনি একটি কাঁটারও ধমক
বৃষ্টি ঝরবে বলে আজ ওরা শুধু বকবক।
সময় বড্ড কম,কষ বাওয়া রক্তরা বলে
কিনে ফেলা বদনাম মুছে দিতে একবার আয়
আমারও বাঁচার সাধে ঠা ঠা রোদ্দুরে ছাতি ফেটে যায়।
জানি আমি বেমানান,ফুলছাপ নই
দ্বিধাহীন সয়ে গেছি সব অপবাদ, থুতু গিলে গিলে
দাঁড়িয়ে থেকেছি দূরে ব্রাত্য মিছিলে।
কালো কি মারণ রোগ? নাই যদি–
তার কেন দাবীদার নেই নিস্বার্থেরএকচুল?
জন্ম বিবাগী যেন ঝরে যেতে পৃথিবীতে মিষ্টি বকুল।
ছায়া রং মেয়েরা কেবলি গুনতিতে
ভাতের থালার পাতে,বিজ্ঞাপনের ফিসফিস্
সোনালী ধানের শীষে পোকা খাওয়া ইশ্।
তবে কেন ছায়ার মতো কালো যার রঙ
তার ঘাড় ভাঁজ ফেলে জমকালো জবার ভড়ং
গতিপথে ফ্রীতে পেতে গ্রীণ সিগন্যাল
জড়করা হাত ঢাকে চোখের আড়াল?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *