গরমকালে সুস্থ থাকা

চলে এসেছে গরমকাল। মানুষ বিভিন্নভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে এই অসহ্য গরমে। হঠাৎ অজ্ঞান হওয়ার প্রবণতা গরমকালেই বেশি দেখা যায়। মানুষের শরীরে স্বাভাবিক তাপমাত্রা ৯৮ ফারেনহাইট। কিন্তু এটি যদি ১০৪ ফারেনহাইট অতিক্রম করে তখনই অজ্ঞান হওয়ার আশঙ্কা দেখা যায়।
তাই তো গরমের সময় সাধারণত সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। কেননা গরমের সময় বেলা বাড়ার পাশাপাশি গরমও বাড়তে থাকে। সেসময় যদি দীর্ঘসময় ধরে বাইরে গরম পরিবেশে থাকেন এবং অনেকক্ষণ জল না খেয়ে থাকলে এই সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

তাই গরমে কিছু সহজ পন্থা অবলম্বন করলে অসুস্থতা থেকে বাঁচা সম্ভব। নিচে সেই উপায়গুলো জানিয়ে দেওয়া হলো:
গরমে বেশি করে জল ও তরল জাতীয় খাবার-
গরমের দিনে অতিরিক্ত জল পান করুন। আপনি যেখানেই যান না কেন সঙ্গে জলের বোতল অবশ্যই রাখবেন। এছাড়া লেবুর তৈরি শরবত অল্প অল্প করে ঘন ঘন খাবেন। স্যালাইনও খেতে পারেন। যে কোন ফলের রসও খাবেন।
গরমে সুতি ও ঢিলে পোশাক-
গরমের সময় যত সম্ভব ঢিলে ও সাদা রঙের পোশাক পরা উচিত। যাতে বাইরের বাতাস শরীরে প্রবেশ করতে পারে। তবে পোশাকটা হতে হবে সুতি। যদি টাইট পোশাক পরেন তাহলে খুব গরম ও অস্বস্তি লাগবে। এতে আপনি অসুস্থ হয়ে পরবেন। অজ্ঞান হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।
গরমকালে ছাতা ও সানগ্লাস ব্যবহার-
বাহিরে বের হওয়ার সময় রোদ থেকে বাঁচতে ছাতা ও সানগ্লাস ব্যবহার করুন। এতে তাপ একটু কম লাগবে। তাপ কম হলে অস্বস্তি গরমটাও আর লাগবে না। আর যদি ছাতা ছাড়াই বের হন তাহলে রোদের গরমে আপনি রাস্তাতেই অজ্ঞান হয়ে যেতে পারেন।

গরম পানীয় ত্যাগ করতে হবে-
গরমকালে চা বা কফি জাতীয় খাবার না খাওয়াই ভালো। এগুলো খেলে বেশি গরম লাগার সম্ভাবনা থাকে।
রোদে কাজ থেকে বিরত থাকুন-
গরমের দিনে বাইরের কাজ খুব সকালে বা রোদ পড়ে গেলে বিকেলে করবেন। কারণ রোদে কাজ করলে আপনার অজ্ঞান হওয়ার সম্ভবনা থাকবে।
ছায়াযুক্ত বা এসি রুমে থাকুন-
গরমে বেশিরভাগ সময় ছায়াযুক্ত জায়গায় থাকার চেষ্টা করুন। এসি রুম হলে খুব ভালো হয়। কখনই গরম পরিবেশে থাকবেন না।
গরমে অতিরিক্ত ব্যায়াম এড়িয়ে চলুন-
গ্রীষ্মকালে অতিরিক্ত ব্যায়াম না করাই ভালো। এ সময় খুব ব্যায়াম করুন। অতিরিক্ত ব্যায়ামে আপনার খুব গরম লাগবে এবং অসুস্থ হয়ে পরবেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *