নাম রাখাই যার পেশা

এ জীবনে কারও না কারও নামকরণ তো আপনি নিশ্চয় করেছেন। নিজের ছেলে মেয়ে হোক বা আত্মীয় পরিজনের নবজাতক, নিদেন পক্ষে পাড়াপড়শির ছেলেমেয়ের নামও রেখেছেন কেউ না কেউ। কিন্তু জানতেন কি এই নামকরণই কারও পেশা হতে পারে? বিশ্বাস হচ্ছে না তো?  নামকরণকে পেশা বানিয়ে নিয়েছেন নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির এক শিক্ষার্থী। ২০১৫ সাল থেকে টেইলর এ. হামফ্রেই নামের ওই তরুণী নবজাতকদের নামকরণ করা শুরু করেন। এর মাধ্যেই তিনি আয় করেছেন লক্ষ লক্ষ ডলার।

গত বছর শতাধিক শিশুর নামকরণ করেছেন টেইলর এ. হামফ্রেই। তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টও আছে। ১৫০০ ডলারের বিনিময়ে হামফ্রেই পছন্দের নামের তালিকা করে দেন। ১০ হাজার ডলারের বিনিময়ে নির্দিষ্ট নাম বাছাই করে দেন তিনি। এ জন্য অভিভাবকদের কাছ থেকে নানা তথ্য আগে থেকেই নিয়ে নেন। তাদের পরিবারের সদস্যদের নাম, আর্থ-সামাজিক অবস্থা, জাতিগত ঐতিহ্য নিয়েও প্রশ্ন করেন। অনেকে সন্তান হওয়ার আগেই তার কাছে নাম ঠিক করার আবদার করেন।

টেইলর এ. হামফ্রেই পড়াশুনা শেষে চিত্রনাট্য লেখার কাজ নিয়েছিলেন। সেখানে চরিত্রের নাম দেওয়ার সময়টা ভীষণ উপভোগ করতেন। ছোটবেলায় বাচ্চাদের বই পড়তে ভীষণ ভালোবাসতেন। নামকরণের কাজটি খুবই উপভোগ করেন তিনি। এখন এটিই তার পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। চিত্রনাট্য লেখা ছাড়াও আরও নানা কাজে যুক্ত হয়েছিলেন। তবে এখন নবজাতকদের নামকরণ নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকেন ৩৩ বছর বয়সী টেইলর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + eleven =