যে মেয়েটা

 গদাধর সরকার, কৃষ্ণনগর, নদীয়া  ##

যে মেয়েটা   ছড়ায় সাগর পারুল চাঁপার মনে  ।

যে মেয়েটা   খুশির খবর পাঠায় হলুদ বনে  ।

যে মেয়েটা   ঘুরে বেড়ায় শিরিন নদীর বাঁকে  ।

যে মেয়েটা    আপন মনে উদাস দুপুর আঁকে  ।

যে মেয়েটা    ধুলো ওড়ায় কুসুম পুরের পথে   ।

যে মেয়েটা   আবির ছড়ায় লাজুক মনের মঠে  ।

যে মেয়েটা    সাহস জাগায় আশার প্রদীপ জ্বেলে 

যে মেয়েটা   রামধনু মন  ।  সরায় আঁধার ঠেলে 

যে মেয়েটা   রূপকথা পুর  ।   নুপুর পরে নাচে  ।

যে মেয়েটা   সোহাগ দিয়ে ফোটায় কুঁড়ি গাছে ।  

যে মেয়েটা   রোদের কুচি ছড়ায় নদীর কুলে  ।

যে মেয়েটা   মনের আগল সদাই রাখে খুলে  ।

যে মেয়েটা   শালুক ফুলের আদর ভালোবাসে  ।

যে মেয়েটা   খুশির পালক ছড়ায় সবুজ ঘাসে  ।

যে মেয়েটা   টগর, পলাশ, তিতির পুরের ছুটি   ।

যে মেয়েটা   নদীর সাঁকো  ।  বুনো হাঁসের জুটি  ।

যে মেয়েটা  সাঁতার কাটে গাঁয়ের পুকুর ঘাটে  ।

যে মেয়েটা  কাগজ কুড়োয় নিঝুম পুরের হাটে  ।

যে মেয়েটা  ঝুমঝুমি ভোর, কেবল কাছে ডাকে  

সেই মেয়েটাই বাঁশি আমার  ।  হৃদয় জুড়ে থাকে 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *