প্রেম

মানসী কবিরাজ, শিলিগুড়ি

গ্রামের স্কুল থেকে মাধ্যমিক পাশ ক’রে শিলিগুড়ি শহরে এগারো ক্লাসে ভর্তি হ’ল অশোক । তার জীবনের প্রথম কো-এড স্কুল । প্রথম দিনেই পাশে বসল সুমনা,সেও মফস্বল থেকেই এসেছে । ওরা এক ট্রেনে বাড়ি ফেরে । প্রথমে সুমনার স্টেশন , তারও আধ ঘন্টা পরে অশোকের । জার্নির প্রথম একঘন্টা কিভাবে কেটে যায় দুজনের কেউই টেরটি পায় না.. কিন্তু সুমনা নেমে গেলেই ঘড়ির কাঁটা যেন স্থির হয়ে যায় , আধ ঘন্টাতো নয় যেন অনাদি কাল লেপ্টে যায় একাকী সময়ে । তারপর উচ্চমাধ্যমিকের গন্ডী পেরিয়ে ইংরেজিতে অর্নাস নিয়ে শিলিগুড়ি কলেজে …..ক্লাস-নোটের আদান প্রদান,কলেজে পাশাপাশি, ট্রেনে পাশাপাশি, প্রজাপতির পাখায় পাখায় উড়ে যায় সময় ।
সুমনা প্রতিদিন ভাবে আজ নিশ্চয় অশোক বলবে সেই ম্যাজিক তিনটে শব্দ …
আর অশোক ভাবে সে যতদিনে চাকরি পাবে ততদিনে সুমনা তার শেষ আইবুড়ো ভাত খেয়ে নেবে … …
গ্র্যাজুয়েশানের চৌকাঠ পেরিয়ে ভাল রেজাল্টের দাক্ষিণ্যে দুজনেই এন.বি.ইউ তে এম. এর পাঠক্রমে সুযোগ পেয় গেল। কিন্তু সেকেন্ড ইয়ারে ওঠার পর দুম ক’রে না ব’লে কয়ে অশোক পড়া ছেড়ে দিল ,এমনকি কোনো যোগাযোগও রাখলো না সুমনার সাথে ।
সুমনা মনের সঙ্গে যুদ্ধ ক’রে পড়া শেষ করলো .. না আর কারো সঙ্গেই নিজের মনকে জড়ায় নি সে..।
সেদিন সমাবর্তন অনুষ্ঠান শেষে বাড়ির ফেরার সময় ট্রেনে আচমকা অশোকের সাথে দেখা। দুজনেই এক সঙ্গে বলে উঠলো.. তোর সঙ্গে কথা আছে… মাঝের এক বছরের অদেখা যেন কর্পূরের মতো উড়ে গেল…
অশোক ভাবলো, চাকরির খবরটা দিয়েই আজ সুমনাকে বিয়ের প্রস্তাব দেবে… সে তো মাঝপথে পড়াটা ছেড়েছিলো যাতে এই রাজকন্যাটি তার হাতছাড়া না হয় …তার আগে বরং শুনে নিই সুমনার কথা ..শেষে ওকে সারপ্রাইজটা দেবো….
অশোক বললো ‘তোরই প্রথম চান্স, ভাষণটা দিয়ে দে চটপট’
সুমনা বললো ‘তুই তো মাঝপথেই পড়া ছেড়ে দিলি ..এদিকে বাড়ি থেকে আর দেরী করতে রাজি নয় রে , তাই হ্যাঁ বলে দিয়েছি পাত্রপক্ষকে….. তোকে কিন্তু আসতেই হবে, কোনো অজুহাতই বরদাস্ত করবো না এবারে’….এই ব’লে সে মিথ্যে মিথ্যে ব্যাগ থেকে বিয়ের কার্ড খোঁজার ভান করতে লাগলো আর ভাবলো এসব শুনে অশোক আর চুপ করে থাকবে না..এখনই বলবে সেই দীর্ঘ প্রতীক্ষিত কথাটা…
সে অশোককে বললো …. “এবারে কিন্তু তোর বলার পালা’
অশোক তার এতদিনের স্বপ্নগুলো এক ঢোঁকে গিলে নিয়ে উদাস স্বরে বলে ‘ তোর মতো কোনো গুরু গম্ভীর বিষয় নয়, নেহাতই মামুলি …আমি ভাবছি এবারে ডিসট্যান্সেই এম.এ টা কমপ্লিট করব বুঝলি ..
অশোকের আর বলা হ’লো না চাকরি পাওয়ার কথা ..…
সুমনা ভাবলো অশোক আজও যদি একবার তাকে…
ট্রেন থেমে গেল নির্দিষ্ট স্টেশনে…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *