ফের মালিকের প্রাণ বাঁচালো স্মার্ট ওয়াচ

গাড়ির ধাক্কায় ছিটকে পড়েছিলেন, দুর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু একপ্রকার নিশ্চিত ছিল। কিন্তু হাতের ঘড়ি তাকে প্রাণে বাঁচিয়ে দিল। ঘটনাটি আমেরিকার মিনেসোটা প্রদেশের। স্মার্ট ওয়াচের মাধ্যমে বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন যুবক। গাড়ির ধাক্কায় তিনি গুরুতর আহত হয়েছেন। কিন্তু হাতে পরে থাকা ঘড়িটির কেরামতিতে এই যাত্রায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন। সুস্থ হওয়ার পর সেই ঘটনার কথা সকলের সঙ্গে ভাগও করে নিয়েছেন তিনি।

ওই যুবকের নাম মাইকেল ব্রডকর্ব। কিছু দিন আগে তিনি নিজের গাড়ির গ্যারাজের সামনে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। অন্য একটি গাড়ি উল্টো দিক থেকে এসে তাঁকে ধাক্কা মেরে চলে যায়। সেই ধাক্কায় যুবক ছিটকে রাস্তায় পড়ে যান। তিনি জানিয়েছেন, গাড়ির ধাক্কায় তিনি এতটাই আহত হয়েছিলেন, নড়াচড়া করার কোনও ক্ষমতাই ছিল না আর। দীর্ঘক্ষণ ওই ভাবেই রাস্তায় পড়েছিলেন তিনি। ঠিক এই সময়েই বিপদে ত্রাতা হয়ে উঠে আসে তার হাতের স্মার্ট ওয়াচটি।

যুবকের মতে- অ্যাপল ওয়াচের ‘ফল ডিটেকশন ফিচার’ বা পড়ে যাওয়া আটকানোর প্রযুক্তি এ ক্ষেত্রে কাজে লেগেছে। তিনি ছিটকে পড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘড়িটি বুঝতে পেরেছিল, তার সঙ্গে কী হয়েছে। তাই দেরি না করে স্মার্ট ওয়াচ থেকে জরুরি পরিষেবার নম্বর ৯১১-এ ফোন যায়। একই সঙ্গে যুবকের স্ত্রী এবং সন্তানদের কাছেও বিপদের বার্তা পাঠিয়ে দেয় ওই ঘড়ি।

৯১১ থেকে জরুরি পরিষেবার কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছান এবং যুবককে উদ্ধার করেন। তার পাঁজরের হাড় এবং কোমরে চোট লেগেছিল। চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে ওঠেন যুবক। এরপর  ঘড়ির কীর্তি তিনি সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন। এমনকি, অ্যাপলের সিইও টিম কুককেও ইমেলের মাধ্যমে ধন্যবাদ জানান তিনি। কুক তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।

এর আগেও স্মার্ট ওয়াচ বেশ কয়েকজনের প্রাণ বাঁচিয়েছে এমন করেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + eleven =