মুখ

কালীপদ মণ্ডল, পুরশুড়া, হুগলী ##


মুখটা তো মুখই
কাপড়ে ঢাকা অংশত,মুখোশ বলেই মানি
তবু
মুখটা মুখই।

লাল নীল সাদা কালো সবুজ মুখোশের আড়ালে
জেনো,সতেজ প্রাণবন্ত একখানা মানবিক মুখ
খেলা করে
সবার সাথে,দেখা হলে পথে ঘাটে।

পরাঙ্মুখ হতে হয় মাঝে মাঝে।

শুধু কি চোখেই লুকিয়ে থাকে সবটুকু পরিচয়?
নাক ঠোঁট চিবুক কপাল এমনকি কপোলেও
ছিটিয়ে থাকে সত্ত্বার দাগ,
কাজেই সবসময় চেনা যায় না মানুষকে

সেই অচেনা বৃত্তেই তোমার ঘোরাঘুরি
অশেষ হয়ে ধরা পড়ে মর্মে
মুহূর্তে সত্য হয়ে ওঠে দুজনেই,
কোথাও কোনো ফাঁক থাকে না।

অথচ মুখোশহীন মুখ কখনো সখনো
মুখোশধারী হয়ে উঠেছে অনায়াসে
অসহায় হাত সে মুখের দিকে বাড়িয়ে দিতে
একরাশ তঞ্চকতা নিয়ে
ডুবে গেছে রাতের অন্ধকারে

তাকেও মুখ বলে ভ্রম হয়!

সত্যি বলছি, আমার কোনো মুখোশ নেই
ভালবাসা পাবার জন্য উন্মুখ হয়ে আছি
উন্মুখ হয়ে আছি ভালো কথা শোনার জন্য
ভাল দেখার জন্য ওষ্ঠাধর ঢেকে রাখলেও
মেলে দিয়েছি স্নিগ্ধ দৃষ্টি

আমাকে এড়িয়ে যেয়ো না
এ মুখোশ খুলতে পারব না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *